এবার এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষায় বসতেই হবে শিক্ষার্থীদের

এবার এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষায় বসতেই হবে শিক্ষার্থীদের

আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব কমিটির সভাপতি ও ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক নেহাল আহমেদ বলেছেন, নির্ধারিত সময় থেকে আরো দু’তিন মাস পিছিয়ে নেয়া হতে পারে এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা। এরইমধ্যে সিলেবাস সিলেবাস সংক্ষিপ্ত করে দেয়া হয়েছে। তাই পূর্ব নির্ধারিত তারিখ অনুযায়ী হচ্ছে না এসএসসি ও এইচএসসি সমমানের কোনো পরীক্ষা। বুধবার (৫ মে) তিনি বলেন, এবারের এসএসসি কিংবা এইচএসসির বিষয়টি ভিন্ন। ক্লাসে যেতে পারেনি শিক্ষার্থীরা। তাই সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে হলেও এবার পরীক্ষায় বসতেই হবে শিক্ষার্থীদের। এর আগে গত ২৭ জানুয়ারি এনসিটিবিতে কারিকুলাম বিশেষজ্ঞদের সঙ্গে বৈঠক করেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এসএসসির জন্য ৬০ দিন এবং এইচএসসির জন্য ৮৪ দিনের সংক্ষিপ্ত সিলেবাস করার নির্দেশ দেন। গত ২৩ মে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার ঘোষণা দিয়ে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। ২৫ মার্চ করোনাভাইরাস সংক্রান্ত জাতীয় পরামর্শক কমিটির বৈঠক শেষে এমন সিদ্ধান্ত নেয় মন্ত্রণালয়। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, করোনার সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় শিক্ষার্থী, শিক্ষক, কর্মচারী ও অভিভাবকদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা এবং সার্বিক নিরাপত্তার বিষয়টি বিবেচনা করে ও কোভিড-১৯ সংক্রান্ত জাতীয় পরামর্শক কমিটির পরামর্শক্রমে মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পর্যায়ের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে আগামী ঈদুল ফিতরের পর ২৩ মে ক্লাস শুরুর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। তবে এ সময়ে অনলাইন শিক্ষাকার্যক্রম অব্যাহত থাকবে বলে জানানো হয়। একইসঙ্গে শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আহ্বান জানান শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।