পদ্মাসেতুর রেল স্ল্যাব নির্মাণকাজ শতভাগ শেষ

পদ্মাসেতুর রেল স্ল্যাব নির্মাণকাজ শতভাগ শেষ

সব স্প্যান বসানোর পর আরো এক ধাপ এগিয়ে গেছে পদ্মাসেতুর নির্মাণকাজ। সেতুর রেল স্ল্যাব নির্মাণকাজ শতভাগ সম্পন্ন হয়েছে। এরই মধ্যে মাওয়ার কুমারভোগ ইয়ার্ডে নির্মিত রেল স্ল্যাবগুলো স্প্যানের ওপর বসানো হচ্ছে।

মাওয়ার কুমারভোগ ইয়ার্ড সূত্র জানায়, পদ্মাসেতুর রোড ও রেলপথের জন্য মাওয়ার কুমারভোগ ইয়ার্ডে স্ল্যাব নির্মাণকাজ চলছে। এই ইয়ার্ডে সেতুর ২ হাজার ৭৯১টি রোড স্ল্যাব নির্মাণ করা হচ্ছে। পদ্মাসেতুর জন্য ১৯টি রোড স্ল্যাব বানানো বাকি আছে। আগামী এক মাসের মধ্যে স্ল্যাব বানানোর কাজ পুরো শেষ হবে বলে আশাবাদী প্রকল্প কর্তৃপক্ষ। আর সেতুর জন্য নির্ধারিত ২ হাজার ৯৫৯টি রেলওয়ে স্ল্যাবের নির্মাণকাজ শতভাগ সম্পন্ন হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, মাওয়া কুমারভোগ ইয়ার্ডে স্ল্যাবের কাজ শেষে সেগুলোকে ভাসমান বার্জের সহায়তায় পদ্মাসেতুতে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। সেতুর স্প্যানগুলোতে ক্রেনের সহায়তায় রোড ও রেল স্ল্যাব স্থাপন করা হচ্ছে। এখন পর্যন্ত রোড স্ল্যাব বসানো হয়েছে ১ হাজার ৩৬১টি এবং রেল স্ল্যাব বসানো হয়েছে ১ হাজার ৯৭৪টি। অর্থাৎ সেতুতে রোড স্ল্যাব বসানোর কাজ ৪৭ ভাগ এবং রেল স্ল্যাব বসানো শেষ ৬৭ ভাগ সম্পন্ন হয়েছে। এর মধ্যে জাজিরা প্রান্তে প্রায় ২ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যজুড়ে বসে গেছে রোড ও রেল স্ল্যাব। স্প্যানের ওপর শতভাগ রোড ও রেল স্ল্যাব বসাতে আরো ছয় মাস লাগবে।

পদ্মা বহুমুখী সেতুর প্রকল্প পরিচালক শফিকুল ইসলাম বলেন, রেলওয়ে ডেকের কাজ করা সহজ, যা আমাদের ৬০ শতাংশ কাজ শেষ হয়েছে। আর এক একটা স্প্যান করতে এক মাসের বেশি সময় লেগে যায়। তাই এ কাজ একটু সময় নিয়ে করতে হচ্ছে। তবে সেই তুলনায় সেতু ও ভায়াডাক্টের ২ পাশে প্রায় ২৫ কিলোমিটার রেলিং নির্মাণের জন্য প্যারাপেট তৈরির কাজ কিছুটা ধীরে এগিয়েছে। মোট ১২ হাজার প্যারাপেটের মধ্যে বানানো হয়েছে ৭ হাজার। আর সেতুতে বসানো হয়েছে মাত্র ২২টি।