ঢাকাবুধবার , ১লা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
  1. অর্থনীতি
  2. আইন ও বিচার
  3. আর্ন্তজাতিক
  4. খেলাধুলা
  5. গণমাধ্যম
  6. জবস
  7. জাতীয়
  8. ধর্ম
  9. প্রবাস
  10. ফিচার
  11. বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি
  12. বিনোদন
  13. রাজনীতি
  14. লাইফস্টাইল
  15. শিক্ষা
আজকের সর্বশেষ সবখবর

চৌহালীতে বিএনপি পরিবারে নৌকার মনোনয়ন না দেয়ার দাবি

Khoborantor
নভেম্বর ৩, ২০২১ ৪:০০ অপরাহ্ণ
Link Copied!

নিজস্ব প্রতিবেদক-
আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে সিরাজগঞ্জের চৌহালী উপজেলার বাঘুটিয়া ইউনিয়নে বিএনপি পরিবারের হাতে নৌকার মনোনয়ন তুলে না দিতে সংশ্লিষ্টদের প্রতি দাবি উঠেছে। বুধবার সকালে বাঘুটিয়া ইউনিয়নের বাসিন্দা সাবেক ছাত্রলীগ নেতা মহসিন রেজা সাংবাদিকদের নিকট একটি লিখিত অভিযোগ করেন। মহসিন রেজা টাঙ্গাইল জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক। লিখিত
অভিযোগে মহসিন রেজা জানান, চৌহালী উপজেলা বিএনপির সাবেক সহসভাপতি মৃত সাইদুর রহমান লাল মিয়ার সন্তান আবদুল কাহহার সিদ্দিকী এবারও নৌকা পেতে লবিং চালিয়ে যাচ্ছেন। কাহহার সিদ্দিকী উপজেলা বিএনপির বর্তমান আহবায়ক কমিটির অন্যতম সদস্য বাকি বিল্লার ছোট ভাই। পারিবারিক ভাবে কাহহার সিদ্দিকী বিএনপির সাথে সংযুক্ত। তার পিতা ও বড় ভাই সহ পরিবারের অন্যান্য অনেক সদস্য বিএনপির রাজনীতির সাথে জড়িত। বিএনপির প্রাক্তন সংসদ সদস্য মেজর (অবঃ) মুঞ্জুর কাদের এর সময় তার পিতা বিএনপির সমর্থনে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলেও কাহার সিদ্দিকী নৌকা বাগিয়ে নিয়ে বর্তমান চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে দায়িত্বে রয়েছে। এর পর থেকে তিনি আওয়ামীলীগের মোড়কে বিএনপির পক্ষে বিভিন্ন কাজ করে যাচ্ছেন। অভিযোগে আরও উল্লেখ করা হয়, কাহহার সিদ্দীকি গরীবের কম্বল অত্মসাৎ করেছেন। এটা তদন্ত হয়েছে। এক মুক্তিযোদ্ধার জায়গা দখল ও সরকারী গাছ লুট সহ বিভিন্ন প্রকল্পে নয়ছয় করেছেন। আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে তার অবস্থান ছিল স্পষ্ট। তাই
আসন্ন নির্বাচনে নৌকা প্রতীক তাকে না দিতে উপজেলা আওয়ামীলীগের নিকট অভিযোগ করেছি। আশা করছি স্বাধীনতার প্রতীক নৌকা আর দেয়া হবে না বিএনপির পরিবারের সদস্য আব্দুল কাহহার সিদ্দিকীকে। এবিষয়ে আব্দুল কাহহার সিদ্দীকি জানান, আমার চৌদ্দ গুষ্টি বিএনপি তারপরও বিগত নির্বাচনে নৌকা পেয়েছিলাম।
এটা কোন সমস্যা না, যারা জনবিচ্ছিন্ন তারাই অভিযোগ করে। এতে কিছু যায় আসে না। এ বিষয়ে সিরাজগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক (ভারপ্রাপ্ত) আবদুস ছামাদ তালুকদার জানান, লিখিত অভিযোগ এখনও হাতে পায়নি। তাই এই মুর্হুতে মন্তব্য করতে পারছি না।

%d bloggers like this: